১৯০৮ সালের ২৭ আগস্ট অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসে জন্মগ্রহণ করেন টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান ডোনাল্ড জর্জ ব্রাডম্যান। ১৯২৮ সাল থেকে ১৯৪৮ সাল পর্যন্ত অজিদের হয়ে টেস্ট খেলেন তিনি। ২০ বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারে খেলেছেন ৫২টি ম্যাচ, তার মধ্যে অ্যাশেজ সিরিজেই খেলেছেন ৩৭টি ম্যাচ।

Image Source: espncricinfo

ব্রাডম্যান তার ক্যারিয়ারে এমন কিছু রেকর্ড করে গেছেন, যা ভাঙা প্রায় অসম্ভব। এমন কিছু রেকর্ড রয়েছে যা অস্বাভাবিক বললেই চলে। ২০০১ সালে কালজয়ী এই ক্রিকেটার পরলোক গমন করেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল এই ব্যাটসম্যানের অ্যাশেজে করে যাওয়া কিছু রেকর্ড সম্পর্কে।

১. অ্যাশেজ ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান

অ্যাশেজ ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের মালিক অজি কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্যার ডোনাল্ড ব্রাডম্যান। ১৯২৮ সালে এই কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান তার ক্যারিয়ার শুরু করেন। ক্যারিয়ারের অধিকাংশ ম্যাচই তিনি অ্যাশেজ সিরিজে খেলেন। ১৯২৮ সাল থেকে ১৯৪৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ২০ বছর তিনি অজিদের হয়ে টেস্ট খেলেন।

Image Source: cricketmonthly

২০ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে তার রয়েছে অসংখ্য রেকর্ড, তার মধ্যে একটি হলো অ্যাশেজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী। ব্রাডম্যান তার ক্যারিয়ারে ৫২টি ম্যাচ খেলেন, যার মধ্যে ৩৭টি ম্যাচই খেলেন অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। তার মধ্যে ৬৩টি ইনিংসে ব্যাট করেন এবং তাতে ৮৯.৭৮ এর অবিশ্বাস্য গড় ছিল।

Image Source: espncricinfo

অ্যাশেজ ক্যারিয়ারে ১৯টি শতক ও ১২টি অর্ধশতকে করেন ৫,০২৮ রান। তিনিই একমাত্র  ব্যাটসম্যান যার অ্যাশেজে ৪,০০০ ও ৫.০০০ রানের মাইল ফলক স্পর্শ করার রেকর্ড রয়েছে। অ্যাশেজে তিনি ৬ বার শুন্য রানে আউট হন এবং ৭ বার অপরাজিত থাকেন। ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংসটিও তিনি অ্যাশেজে করেন। ম্যাচটিতে ৩৩৪ রান সংগ্রহ করেন।

Image Source: ESPNCricinfo

দেশের মাটির চেয়ে বিলেতের মাটিতে তিনি বেশ সফল ছিলেন। যেখানে ১০২.৭৯ গড়ে করেছেন ২৬৭৪ রান। যেখানে তার নিজ দেশের মাটিতে গড় ৭৮.৪৬। দ্বিতীয় স্থানে আছেন ইংলিশ তারকা ব্যাটসম্যান স্যার জ্যাক হবস। দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও ব্রাডম্যান থেকে ১৩৯২ রানে পিছিয়ে আছেন তিনি।

২. অ্যাশেজের এক আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ

ডন ব্রাডম্যানের অ্যাশেজের অন্যতম কয়েকটি ব্যাক্তিগত রেকর্ডের মধ্যে এক আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করার রেকর্ডটি অন্যতম। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অ্যাশেজ সিরিজে রেকর্ডটি গড়তে সক্ষম হন তিনি। এর আগে ১৯২৮-২৯ মৌসুমে ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান ওয়ালি হ্যামন্ডের করা ৯০৫ রানই ছিল অ্যাশেজের এক আসরের সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত রান। এই রেকর্ডটি বেশি দিন শীর্ষ স্থান দখল করে রাখতে পারেনি।

এর পরের সিরিজে ১৯৩০ সালে মাত্র ৭ ইনিংস ব্যাট করে ৯৭৪ রান করে শীর্ষ স্থান দখল করে নেনে ব্রাডম্যান। ওই সিরিজে দুই বার দ্বি-শতক, একবার ত্রি-শতক ও একবার শতক হাঁকান তিনি। ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত রানের ইনিংসটিও পূর্ন করেন ওই আসরেই। তার ইনিংস গুলো ছিল ৮, ১৩১, ২৫৪, ১, ৩৩৪, ১৪ ও ২৩২ রানের। ওই আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী ছিলেন হার্বার্ট সাটক্লিফ। যার সাথে ব্রাডম্যানের রানের পার্থক্য ছিল ৫৩৮ রানের।

৩. এক আসরে সর্বোচ্চ শতক হাঁকানোর রেকর্ড

ব্রাডম্যান তার ক্যারিয়ারের খেলেছেন ৫১টি টেস্ট ম্যাচ। আর এতেই অজি ক্রিকেট ইতিহাসের দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ২৯টি শতক পুর্ন করেন। অ্যাশেজ ক্যারিয়ারে খেলেছেন ৩৭ ম্যাচ আর তাতে পূর্ন করেন ১৯টি শতক। অ্যাশেজ ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শতক পূর্ণ কারী ব্যাটসম্যান হলে জ্যার জ্যাক হবস। তার শতক সংখ্যা ১২টি।

Image Source: espncricinfo

ধারনা করা হচ্ছে, বর্তমানে টেস্টে সোনালী সময় পার করা অজি ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ ব্রাডম্যানের সে শতকের রেকর্ড ভেঙে শীর্ষ স্থান দখল করে নিবেন। স্মিথ অ্যাশেজে মাত্র ২৫টি ম্যাচ খেলেন এবং তাতেই ১০টি শতক পূর্ণ করেন। ব্রাডম্যান তার ক্যারিয়ারের প্রথম অ্যাশেজ সিরিজ খেলেন ১৯২৮-২৯ মৌসুমে। সেবার দুটি শতকের দেখা পান। ১৯৩০ মৌসুমে তার দ্বি গুন শতক হাকান তিনি।

৪. একদিনে ব্যাক্তিগত রান সংগ্রহের রেকর্ড

অ্যাশেজ ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী,  এক আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী, এক দিনের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী সব রেকর্ডই যেনো নিজের নামে করে নিয়েছে কালজয়ী টেস্ট সেরা ব্যাটসম্যান স্যার ডন ব্রাডম্যান। তার ক্যারিয়ারের সেরা টেস্ট সিরিজ ছিল ১৯৩০ সালের অ্যাশেজ সিরিজটি।

Image Source: espncricinfo

ওই আসরে নিজের সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত রানের ইনিংসের পাশাপাশি অ্যাশেজ ইতিহাসের এক আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ ও এক দিনের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করার রেকর্ড করেন। সে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে প্রথম দিন অর্থাৎ ১১ জুলাই ৩০৯ রান করে সে রেকর্ডটি গড়েন ব্রাডম্যান। প্রথম দিনের তার অপরাজিত ৩০৯ রানের ইনিংসে ৪৫৮ রান সংগ্রহ করে অজিরা। দ্বিতীয় দিন ব্যাট করতে নেমে ৩৩৪ রানে আউট হয়ে সাঝ ঘরে ফিরে যান তিনি।

৫. অ্যাশেজে সবচেয়ে বেশি দ্বি-শতক ও ত্রি-শতকের মালিক

টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে শুধু মাত্র চার জন ব্যাটসম্যান আছেন যারা একের অধিক ত্রিপল সেঞ্চুরির দেখা পান। দুইয়ের অধিক ত্রিপল সেঞ্চুরির দেখা পাননি কোন টেস্ট ব্যাটসম্যান। ত্রিপল সেঞ্চুরিয়ানদের মধ্যে সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলা ব্যাটসম্যান হলে ডন ব্রাডম্যান।

Image Source: espncricinfo

ক্যারিয়ারের দুইটি ত্রিপল সেঞ্চুরির দুইটিই পূর্ন করেন অ্যাশেজে। তার সমান ত্রিপল সেঞ্চুরি ছিল ব্রায়ান লারা, ক্রিস গেইল ও বীরেন্দ্র শেভাগের। আর টেস্ট ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক দ্বি-শতকের রেকর্ডটিও ব্রাডম্যানের দখলে। ক্যারিয়ারে তিনি ১২টি দ্বি-শতকের দেখা পান। যার ৬টি পূর্ণ করেন অ্যাশেজ সিরিজে৷ ওয়ালি হ্যামন্ড ছিলেন অ্যাশেজের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দ্বি-শতক পূর্নকারী ব্যাটসম্যান।

তার দ্বি-শতকের সংখ্যা ৪টি। তার দ্বি-শতকের ইনিংস গুলো ছিল মেলবোর্ন, সিডনি, অ্যাডিলেড, লর্ডস ও ওভালে এবং সেগুলোতে ২৭০,২৩৪,২১২, ২৫৪, ২৪৪ ও ২৩২ রান করেন।

Featured Image: cricketmonthly