একদিনের ক্রিকেটে যেকোনো ম্যাচের ফলাফল অনেকটা নির্ধারিত হয়ে যায় ওপেনিং ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্সের ওপর। কেননা উদ্বোধনী জুটিতে একটা ভালো শুরুই পুরো ম্যাচের দিক বদলে দিতে পারে। শুরুটা ভালোভাবে হলে পরবর্তী ব্যাটসম্যানদের ওপর রান তোলার চাপ অনেক কমে যায়। ফলে তাদের ব্যাটিং লাইন আপ হয়ে ওঠে আরও শক্তিশালী।

অন্যদিকে শুরুটা যদি ভালো না হয় তাহলে বাকি ব্যাটসম্যানদের ওপর চাপটা অনেক বেড়ে যায়। উইকেট হারানোর ভয়ে খেলতে গিয়ে দেখা যায় আউট হয়ে বসেন ব্যাটসম্যানরা।

ওয়ানডে ক্রিকেটে বড় স্কোর হওয়া ইনিংসগুলোর পরিসংখ্যানে চোখ রাখলে দেখা যায়, প্রতিটা ইনিংসের শুরুটা হয়েছে অনেক ভালোভাবে। কেননা ভালো ফর্মে থাকা দলগুলোর উদ্বোধনী জুটি হয় বেশ শক্তিশালী। আর আমাদের আজকের আলোচনা সাজানো হয়েছে বর্তমান সময়ের পাঁচটি সেরা উদ্বোধনী জুটি নিয়ে।

৫. ফখর জামান এবং ইমাম-উল-হক (পাকিস্তান)

পাকিস্তান দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান ফখর জামান এবং ইমাম-উল-হকের উদ্বোধনী জুটি ক্রিকেটে সেরা জুটিগুলোর মধ্যে একটি। বেশ কিছুদিন ধরে রান খরায় ধুকতে থাকা পাকিস্তানের বর্তমানে লড়াকু সংগ্রহগুলোর পেছনে বড় ভূমিকা রাখেন এই দুই ব্যাটসম্যান। তাদের অবদানেই পাকিস্তান দলে বেশ পরিবর্তন ঘটেছে।

পাকিস্তান দলের হয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি করা প্রথম ব্যাটসম্যান হলেন ফখর জামান। ২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২১০ রানে অপরাজিত থেকে এই রেকর্ড গড়েন তিনি। জামানের ডাবল সেঞ্চুরি করা সেই ম্যাচে ৩০৮ রানের ওপেনিং জুটি গড়ে ক্রিকেট অঙ্গনে সাড়া ফেলেছিল পাকিস্তান।

ফখর জামান এবং ইমাম-উল-হক; image source: gettyimages.com

নিজের দিনে যেকোনো দলের বোলিং লাইন আপকে দুমড়েমুচড়ে দিতে পারেন ফখর। অন্যদিকে তাকে সঙ্গ দিতে বিপরীত পাশে আছেন আরেক ওপেনার ইমাম-উল-হক। ফখর জামানের সাথে উদ্বোধনী জুটিতে তালে তাল মিলিয়ে রান তুলতে পারেন তিনিও।

২. কুইন্টন ডি কক এবং হাশিম আমলা (দক্ষিণ আফ্রিকা)

দক্ষিণ আফ্রিকা দলের খেলোয়াড়েরা দক্ষতার দিক থেকে ক্রিকেটের উপরের স্তরে অবস্থান করেন। কিন্তু বড় কোনো টুর্নামেন্টের সময় তারা নিজেদের সেই উচ্চতা ধরে রাখতে প্রায় সময়ই ব্যর্থ হন। যেমন চলতি বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে প্রথম তিনটি ম্যাচের কোনোটিতেই জয় লাভ করতে পারেনি প্রোটিয়ারা।

ডি কক এবং আমলা; image source: hindustantimes.com

বিশ্বকাপে প্রোটিয়াদের ব্যর্থতার কারণগুলোর একটা হচ্ছে তাদের ওপেনিং ব্যাটসম্যানদের ব্যার্থতা। কেননা হাশিম আমলার মতো ব্যাটসম্যান ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি। তার এই ব্যর্থতার কারণে বেশ খারাপ সময় পোহাতে হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনিং জুটি মোটেও এমনটা নয়। দীর্ঘদীন যাবৎ তাদের উদ্বোধনী জুটির ওপর ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকা পেয়েছে অনেক সাফল্য। বর্তমানে ওডিআই ক্রিকেটে আমলা ও ডিককের এই জুটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। গত ৯০ ইনিংসে ৪৭.৭৪ গড়ে মোট ৪১৫৪ রান এসেছে শুধুমাত্র তাদের ওপেনিং জুটি থেকে।

৩. অ্যারন ফিঞ্চ এবং ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া)

বল বিকৃতির অভিযোগে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ এবং সহ অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষিত হলে হতাশায় ভুগতে থাকে দলটি। কেননা তারা ছিলেন অস্ট্রেলিয়া দলের ব্যাটিং লাইন আপের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। বিশ্বকাপ শুরুর আগেই দলে ফিরে আবারো আশার আলো জ্বালতে শুরু করে দিয়েছেন তারা।

পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া এই দলটি বিশ্বকাপ জয়ের জন্য দিন গুনছে এবারও। কারণ তাদের হয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করতে মাঠে নামেন ফর্মে থাকা অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার। তাদের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং যেকোনো দলের বোলিং লাইন আপকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। দুজনের যেকোনো একজন উইকেটে একবার থিতু হতে পারলে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যাওয়ার সক্ষমতা রাখেন।

অ্যারন ফিঞ্চ ও ওয়ার্নার; image source: hindustantimes.com

ওয়ার্নার এবং ফিঞ্চ দুজনেই অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ওপেনিং করেছেন ১০০টিরও বেশি ম্যাচে। আর সেখান থেকে প্রতি ম্যাচে ৪৭.৬২ গড়ে করেছেন মোট ২৫২৪ রান। তাছাড়া তাদের এই পার্টনারশিপে রয়েছে ৬টি শতক। ২০১৭ সালে ইন্ডিয়ার মতো শক্তিশালী দলের বিরুদ্ধে ২৩১ রানের উদ্বোধনী জুটির রেকর্ড গড়েন অস্ট্রেলিয়ার এই দুই ওপেনার।

২. জেসন রয় এবং জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)

চলতি বিশ্বকাপের এই আসরে অংশ নেওয়া দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী স্কোয়াড নিয়ে মাঠে নেমেছে ইংল্যান্ড। দলটিতে যেমন রয়েছে যেকোনো দলের ব্যাটিং লাইনকে বিধ্বস্ত করার মতো বোলার তেমনি রয়েছে আক্রমণাত্মক সব ব্যাটসম্যান। সব মিলিয়ে বিশ্বকাপ জয়ের সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নেমেছে দলটি।

জেসন রয় এবং বেয়ারস্টোর উদযাপন; image source: bbc.co.uk

ইংল্যান্ড দলের দুই ওপেনার জেসন রয় এবং জনি বেয়ারস্টোকে বিশ্ব ক্রিকেটে অন্যতম মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবে গণ্য করা হয়। আর তাদের ওপেনিং জুটিও যেকোনো দলের কাছে বেশ ভয়ঙ্কর। তাছাড়াও দলের জন্য সর্বোচ্চ ৬২.৬২ গড়ে রান তোলার জন্যেও বেশ সুনাম রয়েছে এই দুই খেলোয়াড়ের।

ইংল্যান্ড দলের এই দুই ওপেনার তাদের উদ্বোধনী জুটি থেকে মাত্র ২৯ ইনিংসে ১৮১৬ রান করেছেন। অস্ট্রেলিয়ার সাথে ১৭৪ রানের সর্বোচ্চ জুটির পাশাপাশি তারা করেছেন আরও ৮টি শতরানের পার্টনারশিপ। আর সেই শতকগুলোর একটি এসেছে বিশ্বকাপে সম্প্রতি হয়ে যাওয়া ইংল্যান্ড -বাংলাদেশ ম্যাচ থেকে। এই ম্যাচে তারা ১২৮ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ করেন।

১. শিখর ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা (ইন্ডিয়া)

বর্তমানে ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপকে বেশ শক্তিশালী হিসেবে গণ্য করেন ক্রিকেট বোদ্ধারা। তাদের ব্যাটিং ডিপার্টমেন্টে রয়েছে নির্ভরযোগ্য দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা। দলীয় প্রয়োজনে যারা হয়ে উঠেন ভীষণ আক্রমণাত্মক।

রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান; image source: crickettimes.com

তাদের পরেই ব্যাট হাতে দলের হাল ধরার জন্য রয়েছেন বিরাট কোহলি। যিনি বর্তমান সময়ে সেরা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে অন্যতম একজন। কিন্তু তবুও বিগত ছয় বছর যাবৎ ভারতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটিং লাইন আপের মূল শক্তি তাদের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান।

শুধু রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান ভারতের হয়ে ওপেনিং জুটিতে করেছেন ৪৬৮১ রান, যা এই পর্যন্ত সকল ওপেনিং জুটির মধ্যে সর্বোচ্চ। ভারতের দুই কিংবদন্তি সৌরভ গাঙ্গুলি এবং শচীন টেন্ডুলকারের পরেই উদ্বোধনী জুটি হিসেবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৬টি শতরানের পার্টনারশিপ রয়েছে এই দুই ব্যাটসম্যানের নামে।

Feature image source: gettyimage.com